বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৫৬ পূর্বাহ্ন

গ্রার্মেন্টস শ্রমিকের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন শিল্পমন্ত্রীর ছেলে সাদী

প্রতিনিধির নাম / ৩৯৫ বার
আপডেট : সোমবার, ২৬ জুলাই, ২০২১
গ্রার্মেন্টস শ্রমিকের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন শিল্পমন্ত্রীর ছেলে সাদী

নরসিংদী প্রতিনিধি, নরসিংদী জার্নাল: নরসিংদীর মনোহরদীতে মোহাম্মদ কাইয়ুম (২৭) নামে এক গার্মেন্টস পোষাক শ্রমিকের চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী এডভোকেট নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুনের ছেলে ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী যুবলীগের কার্যনির্বাহী সদস্য মঞ্জুরুল মজিদ মাহমুদ সাদী। পোষাক শ্রমিক কাইয়ুম কয়েক মাস যাবত কিডনি জাতীয় সমস্যায় ভূগছিলেন। কাইয়ুম উপজেলার চন্দনবাড়ি ইউনিয়নের আসাদনগর গ্রামের লাল মিয়ার ছেলে।

জানা যায়,কাইয়ুম গাজীপুরের কোনাবাড়ি এলাকায় একটি গার্মেন্টসে পোশাক শ্রমিক হিসেবে অল্প বেতনে কাজ করতেন। কিন্তু কিডনি জনিত সমস্যার কারনে ওনি কাজ করতে অক্ষম হয়ে পড়েন এবং চিকিৎসার অভাবে গ্রামের বাড়ি চন্দনবাড়িতে ফিরে আসেন। মোহাম্মদ কাইয়ুম তার পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী সদস্য ও দুই সন্তানের জনক। তার পরিবার ও আত্বীয় স্বজনদের এই চিকিৎসার খরচ যোগান দেওয়া কঠিন হয়ে পরে।

বিষয়টি জানতে পেরে চন্দনবাড়ি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আহবায়ক মেহেদী হাসান তন্ময় ও যুগ্ন আহবায়ক তানভীর আহমেদ তুষার ঐ রোগীর বাড়িতে গিয়ে চিকিৎসার খোঁজ খবর নেন। তখন তারা অর্থের অভাবে চিকিৎসা বন্ধের বিষয়টি জানতে পারেন। পরে তারা শিল্পমন্ত্রীর ছেলে সাদীকে পোষাক শ্রমিকের টাকার অভাবে কিডনিজনিত সমস্যায় চিকিৎসা বন্ধের বিষয়টি জানান।

ছাত্রলীগের কাছে বিষয়টি জানতে পেরে সাথে সাথে মন্ত্রীপুত্র সাদী মনোহরদী প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক কাজী শরিফুল ইসলাম সাকিলকে রোগীর চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে বলেন। পরে সাদীর নির্দেশনায় রোগীকে ঢাকায় জাতীয় কিডনী ইনষ্টিটিউট হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে রোগীর বড় ভাই মো. মোখলেস বলেন,আমি আল্লাহর কাছে কৃতজ্ঞতা জানাই যে আমার এ বিপদাপন্ন সময়ে সাদী ভাইয়ের মত মহৎ একজন ব্যক্তি আমার পাশে দাঁড়িয়েছেন। আমাদের পরিবারের পক্ষে ভাইয়ের এত ব্যয়বহুল চিকিৎসা করানো সম্ভব ছিলো না।

কেন্দীয় আওয়ামী যুবলীগের নির্বাহী সদস্য মঞ্জুরুল মজিদ মাহমুদ সাদী বলেন, মনোহরদী উপজেলা ছাত্রলীগের সকল কর্মীরা এলাকায় বিভিন্ন অসহায় ও দুঃস্থদের পাশে সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দিচ্ছে। আমাদের একাজের উৎসাহ প্রদান করছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা।

ছাত্রলীগ সব সময় অসহায় মানুষের পাশে থাকবে। আর আমার বাবা মনোহরদী ও বেলাব জনসাধারণের জন্য দিনরাত কাজ করে যাচ্ছেন। আমি সাধ্যমত চেষ্ঠা করছি সকলের পাশে থেকে তাদের সেবা করতে। আর দারিদ্রতার অভাবে কারো চিকিৎসা বিঘ্নিত হতে পারে পারেনা। আমি সহযোগীতা অব্যহত রেখে জনগণের সেবা করে যেতে চাই।

Facebook Comments Box


এ জাতীয় আরো সংবাদ

error: Content is protected !!
error: Content is protected !!